শর্শদিতে আইল্লা বাহিনীর অত্যাচারে অতিষ্ট নিরীহ এক পরিবার

নিজস্ব প্রতিনিধি >>শর্শদিতে আইল্লা বাহিনীর অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে পড়েছে নিরীহ এক পরিবার । মো: আলী ওরপে আইল্লা ছিল এক সময়ের কামলা বা দিন মুজুর । এর পর শুরু করে স্ক্রাপের ব্যবসা । স্ক্রাপের ব্যবসার পর সে রাতারাতি বড় লোক বনে যায় । ভাড়াটে সন্ত্রাসী দিয়ে সে একের পর এক জনের জমি দখেলের প্রক্রিয়া শুরু করে ।

এক পর্য়ায়ে এলাকার শর্শদী ইউনিয়নের উত্তর সফিয়াবাদ গ্রামের ফারজানা আক্তারের জায়গা জবর দখল করতে ভাড়াটে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে চৌদ্দগ্রামের লাটিমী গ্রামের আলী। সে দিন সন্ত্রাসীরা তিন নারীকে কুপিয়ে ও পিটিয়েছে । এ সময়  সন্ত্রাসীরা ওই নারীদের শ্লীলতাহানী করে ।

এ ঘটনায় নির্যাতিতরা ফেনী মডেল থানায়  আলীসহ চার জনকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, উত্তর সফিয়াবাদ গ্রামের মোকলেস সওদাগর বাড়ির শাহআলমের স্ত্রী ফারজানা আক্তারের ঘরের পাশে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার লাটিমী গ্রামের কাজী বাড়ির মৃত আবদুল মালেকের পুত্র মোহাম্মদ আলী বসবাস করছে।

আলীরা জোর পূর্বক ফারজানাদের জায়গার উপর রাস্তা তৈরি করার চেষ্টা চালিয়ে আসছে বহুদিন। এনিয়ে এলাকায় সালিশ-দরবার হলেও তারা মানতে নারাজ।

গত ১৮ এপ্রিল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে অর্তকিত ভাবে আইল্লা, সাইফুল, আবদুল মান্নান, নজরুল ইসলাম সুমন, রিয়েল, ফারুকসহ ১৫/২০ জন বহিরাগত সন্ত্রাসী অস্ত্র, দা-কিরিচ, লাঠিসোটা নিয়ে ফারজানার বাড়িতে হামলা চালায়। তাদের রান্না ঘরের পাশের ওয়াল ভেঙ্গে রাস্তা তৈরির চেষ্টা চালায়। ফারজানা আক্তার বাঁধা দিলে সন্ত্রাসীরা বিবি মরিয়ম ও রোকেয়া বেগমকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে।

একপর্যায়ে তারা শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা চালায়  । হামলার সময় গলায় থাকা স্বর্নের চেইন ৩টি, কানের দুল, মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায়। নারীদের কাপড় চোপড় টানা হেচড়া করে ছিড়ে শ্লীলতাহানী করে। তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ফেনী সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে।

মঙ্গলবার পুলিশ ঘটনাস্থাল পরিদর্শন করে আসামীদের আটকের চেষ্টা চালান । তবে সন্ত্রাসী আইল্লা বাহিনী প্রভাবশালী হওয়ায় টাকা দিয়ে বিষয়টি দামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *