মুক্তিযোদ্ধা রুস্তম আলীর ঠিকানা ফেনীর লালপুল বেদেপল্লীতে

নিজস্ব প্রতিনিধি,

জীবনবাজি রেখে যিনি একে একে ১৭ জন পাক হানাদার বাহিনীর সৈন্যকে খতম করে স্বাধীন বাংলার পাতাকা উড়িয়েছিলেন । তিনিই আজ জীবন সায়াহ্নে এসেও ফিরে পাননি সরকারের দেয়া ১০ শতাংশ ভূমি। জমি ফিরে পাবার আশায় দীর্ঘ ৬ বছর ভূমি দস্যুর সাথে মামলা চালিয়ে যাচ্ছেন মহান সেই মুক্তি সেনা রুস্তম আলী ।

এখন তার আকুতি বেঁচে থাকার শেষ অবলম্বন জমিটুকু ফিরে পাওয়া । আমরা কথা বল ছিলাম যাযাবর মুক্তিযোদ্ধা রুস্তম আলীর কথাই । সত্যি তিনি আজ অসহায় । তিনি চান মাঠির কোলে নুয়ে পড়ার আগে শেষ সম্বলটুকু ফেরত ।

মুক্তিযোদ্ধা রুস্তম আলীর বয়স এখন ৭০ বছর। থাকেন ফেনী শহরতলীর লালপুল বেদেপল্লীর ঝুপড়ি ঘরে। ১৯৭১ সালে এই যোদ্ধা যুদ্ধ করেছেন ১নং সেক্টরে মেজর খায়রুজ্জামানের নেতৃত্বে খাগড়াছরির তবলছড়ি এলাকায়।

১৯৯৬ সালে ৩০০টাকা ভাতা দিয়ে শুরু হয় তার মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে সুযোগ সুবিধা ভোগ করা। কিন্তু সরকার থেকে পাওয়া তার নামের ১০ শতক জমি পেয়েও হারালেন । ফেনী দাগনভূঁইয়া উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের পশ্চিম রামচন্দ্রপুর এলাকায় সরকার তাকে ১০ শতক জমি দিয়েছিল। কিন্তু স্থানীয় এক প্রভাবশালী তার সেই জমি দখল করে রেখেছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

১৯৭১ সালের এই যোদ্ধা তার হারানো জমিটুকু ফেরত পেতে ফেনী জেলা প্রশাসকসহ সংলিষ্ট সকলের হস্তপে কামনা করেছেন। রুস্তম আলী দাগনভূঁইয়া উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের পশ্চিম রামচন্দ্রপুর গ্রামের মরহুম আলী আবদুল আজিজের ছেলে। এখন তার বসতি ফেনীর অদুরে লালপুর বেদেপল্লীতে ।  ( চলবে……… )

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *