ফেনীর ২৮টি রেলক্রসিংয়ের মধ্যে ১৮টিই অরক্ষিত মৃত্যুর ফাঁদ

 

সৌরভ পাটোয়ারী, ২১ মার্চ ২০১৮ :

ফেনীর ২৪ কিলোমিটার এলাকায় ২৮ টি লেভেল রেলক্রসিংয়ের মধ্যে ১৮ অরতি রেলক্রসিংয়ের কারণে বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল। গেইটম্যান না থাকার কারণে দ্রুতগতির রেলে ধাক্কায় ফেনীতে গত এক বছরে নিভে যায় ১৬টি তাজা প্রাণ। আহত হয় প্রায় দেড়শতাধিক নিরীহ প্রাণ । আহদের মধ্যে বেশিরভাগ মানুষ পঙ্গু হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন ।

সর্বশেষ বুধবার ভোরে ফেনীর বারাহিপুর রেলক্রসিংয়ে দুর্ঘটনায় ৪ জন নিহত ও আহত হয়েছেন আরো ২ জন। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এ ঘটনায় ৪ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে রেল কর্তৃপ।

এর আগে ফাজিলপুর, চিনকি আস্তানা, শর্শদি , ভূঞারহাট, কালিদহ, মৌলবীবাজার, মুহুরীগঞ্জ, সহদেবপুর ও দৗলতপুর রেলক্রসিংয়ে ট্রেনে কাটাপড়ে ডাক্তার, স্কুল শিক্ষিকা, ব্যবসায়ী, পথচারীসহ ১২টি তাজা প্রাণ অকালে ঝরে যায় ।

এ সব ঘটনা ভুক্তভোগীর অভিযোগ রেলকর্তৃপক্ষের গাফিলতিকেই দায়ী করছেন । অপরদিকে জেলার রেল লাইন অংশের ২৪ কিলোমিটার এলাকায় ২৮ লেভেল রেলক্রসিংয়ের থাকলেও এখানে গেইটম্যান নিয়োগ দেয়া হয়েছে ১০ জন । বাকী ১৮ টি লেভেল রেলক্রসিং অরক্ষিত রয়েছে ।

ফেনীর বারাহিপুর রেলক্রসিং এলাকায়, ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী তূর্ণা-নিশীথা এক্সপ্রেস ট্রেনটি ফেনী সদরমুখী একটি কাভার্ড ভ্যানকে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে মুহূর্তেই কাভার্ড ভ্যানটি ছিটকে পড়ে। এসময় ঘটনাস্থলেই কাভার্ড ভ্যানের চালক, হেলপারসহ ৩ জন নিহত হয়। এঘটনায় আহত ৩ জনকে তাৎণিক-ভাবে জেলা সদর হাসপাতালে নেয় স্থানীয়রা।
পরে ২ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়। ঢাকায় নেয়ার পথে মৃত্যু হয় আরো ১
জনের।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, গেটম্যানের অসতর্কতার কারণেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার পর থেকেই গেটম্যান পলাতক। ফেনী সদর হাসপাতালের চিকিৎসা সরঞ্জামাদি নিয়ে ৩টি কাভার্ড ভ্যান ঢাকা থেকে ফেনী সদরের উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলো। এসময় বহরের অন্য ২টি কাভার্ড ভ্যান রেলক্রসিং অতিক্রম করতে পারলেও, একটি কাভার্ড ভ্যান দুর্ঘটনার কবলে পড়ে।

ফেনী রেলওয়ের স্টেশান মাস্টার মাহবুবুর রহমান দৈনিক বাংলাদেশের খবরকে জানান, বিষয়টি দেখবাল করার দায়িত্ব নির্বাহী প্রকোশলীর ।

অপরদিকে নির্বাহী প্রকোশলী মোস্তাফিজুর রহমান জানান, গেইটম্যানের গাফিলতি , জনবল সংকট ও সরকারী সঠিক ব্যবস্থাপনার অভাবে এসব দূর্ঘটনা ঘটে থাকে । ঝুকিপূর্ণ রেলক্রসের ব্যপারে বারবার অবহিত করা হলেও অজ্ঞাত কারণে বিষয়টি সমাধান হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *