দুই জন হাত-পা চেপে ধরে আর স্বামী গলায় ছুরি চালায় …!

নিজস্ব প্রতিনিধি>> গৃহবধু শাহানা আক্তারকে তার স্বামী সিরাজউদ্দৌলা নিজ হাতে ধারালো ছুরি দিয়ে গলাকেটে হত্যা করেন। এসময় রানা ও তার নানি খতিজা বেগম হাত-পা চেপে ধরে হত্যাকাণ্ডের সহযোগিতা করে।সোনাগাজীতে গৃহবধুকে গলাকেটে হত্যার ঘটনায় আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন গৃহকর্মচারী আবদুল্লাহ রানা (২২)।  রবিবার সন্ধ্যায় ফেনীর জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক দেলোয়ার হোসেনের আদালতে আবদুল্ল্যাহ রানার জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়।

সোনাগাজী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হারুনুর রশীদ জানান, গত শুক্রবার সকালে সোনাগাজীর পৌর এলাকার চরগনেশ গ্রামের ছদিক মিয়ার বাড়িতে গৃহবধু শাহানারা আক্তার (৫৫) কে জবাই করে হত্যার ঘটনায় আদলতের জবানবন্দি দিয়েছে গৃহকর্মচারী আবদুল রানা।

জবানবন্দিতে রানা জানান, গত শুক্রবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে সোনাগাজী পৌর এলাকার ৮নং ওয়ার্ড চরগনেশ গ্রামের ছদিক মিয়ার বাড়ির গৃহবধু শাহানা আক্তারকে তার স্বামী সিরাজউদ্দৌলা নিজ হাতে ধারালো ছুরি দিয়ে গলাকেটে হত্যা করেন। এসময় রানা ও তার নানি খতিজা বেগম হাত-পা চেপে ধরে হত্যাকাণ্ডের সহযোগিতা করে।
ঘটনার পর পুলিশ জড়িত সন্দেহে শাহানা আক্তারের স্বামী সিরাজউদ্দৌলা, গৃহকর্মচারী আবদুল্লাহ রানা, গৃহপরিচালিকা খোদেজা আক্তার ও প্রতিবেশি আফলাজ হোসেনকে আটক করেন। রবিবার সন্ধ্যায় গৃহবধু শাহানা আক্তারের দেবর মোঃ সেলিম এঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেওয়া আবদুল্ল্যাহ রানাসহ আটককৃত তিনজনকে হত্যার মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে সোমবার আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানোসহ রিমান্ডের আবেদন করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *