শর্শদিতে শিশু পিয়াংকা নির্যাতনকারী খল অভিনেত্রী শাহানা আটক

নিজস্ব প্রতিনিধি

মোমবাতির আগুন দিয়ে শরীরে দেয়া হতো ছ্যাকা। প্রিয়াংকা চিৎকার করে কাঁদলে হাসতো খল অভিনেত্রী শাহানা আক্তার শাহেনী ।  নিজের পালিত মেয়ের উপর এমন নির্মম নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে ফেনী শহরতলীর শর্শদি এলাকায়।

এমন ঘৃন্য কাজটি করতো বাংলা চলচ্চিত্রের অশ্লীল যুগের পার্শ্ব চরিত্রের সাবেক অভিনেত্রী শাহানা আক্তার শাহেনী ।

মঙ্গলবার গভীর রাতে পালিয়ে যাওয়ার সময় ওই ঘৃন্য নারী শাহানাকে ফেনী মডেল থানা পুলিশ আটক করেছে।

ফেনীতে প্রিয়ঙ্কা আক্তার নামে ৫ বছরের শিশুকে বর্বর নির্যাতনের অভিযোগে শাহানা আক্তার শাহেনীকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে ফেনী সদর উপজেলার কয়েকটি স্থানে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্র জানায়, পিতা-মাতাহীন প্রিয়ঙ্কা আক্তারকে পালক মেয়ে হিসেবে নিজের কাছে রাখে একসময়ে বাংলা সিনেমার অভিনেত্রী শাহানা আক্তার শাহেনী। শাহেনী রাজধানী ঢাকায় অবস্থান করলেও নিয়মিত যাতায়াত করতেন। কিছুদিন পূর্বে প্রিয়ঙ্কাসহ উপজেলার শর্শদি ইউনিয়নের গজারিয়া কান্দি গ্রামের নিজ বাড়ীতে আসেন। স্থানীয়রা আরো জানায়, পালক মেয়ে বললেও প্রিয়ঙ্কাকে
দিয়ে ঘরের সব ধরণের কাজ কর্ম সারতেন।
প্রতিবেশী জোহরা আক্তার জানান, মঙ্গলবার বিকালে শাহেনীর বাড়ীতে কান্নার শব্দ শুনে স্বামীকে নিয়ে তিনি সেখানে যান। ত-বিত প্রিঙ্কাকে উদ্ধার করে তারা প্রথমে স্থানীয় স্বাস্থ কমপ্লেক্সে ও পরে আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করায়।
প্রিয়ঙ্কার বরাত দিয়ে তিনি আরো জানান, সোমবার রাতে শাহেনী লাঠি দিয়ে পেটানোর পর তার শরীর জ্বলন্ত মোম বাতি ও খুন্তির ছ্যাকায় ঝলসে দেয়। পরে তাকে আটক রেখে বেরিয়ে যায়। এভাবে প্রায়ই তার উপর বর্বর নির্যাতন করতো বলে জানায় শিশুটি।

ফেনী আধুনিক সদর হাসপাতালের আরএমও ডা. নাজমুল হাসান বলেন, শিশুটির শারীরিক অবস্থা ভালো নয়। শরীরের বিভিন্ন জায়গা ঝলসে যাওয়ায় ওর কিডনি ঝুঁকিতে রয়েছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা অথবা চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে নেয়া প্রয়োজন।
ফেনীর পুলিশ সুপার এসএম জাহাঙ্গীর আলম সরকার গৃহকত্রী শাহানাকে আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পরবর্তীতে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিস্তারিত জানানো হবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *