রাজশাহী সফরে প্রধানমন্ত্রী

৩৪তম বিসিএস (পুলিশ) ব্যাচের সমাপনী কুচকাওয়াজে যোগদান ও আওয়ামী লীগের জনসভায় অংশ নিতে রাজশাহী সফর করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সফরকালে তিনি রাজশাহীর ২৩ উন্নয়ন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও উদ্বোধন করবেন।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর হেলিকপ্টারটি চারঘাটের সারদায় বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমির মাঠে অবতরণ করে। পরে বেলা ১১টার দিকে ৩৪তম ব্যাচের সহকারী পুলিশ সুপারদের সমাপনী কুচকাওয়াজে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী পুলিশ একাডেমিতে শিক্ষানবিশ সহকারী পুলিশ সুপারদের সমাপনী কুচকাওয়াজে অভিবাদন গ্রহণ এবং প্যারেড পরিদর্শন করেন। এরপর তিনি প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশে ভাষণ দেন। এরপর প্রধানমন্ত্রী ১৭টি উন্নয়ন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন এবং ৬টি প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন।

দুপুরে তিনি রাজশাহী নগরের পার্শ্ববর্তী পবা উপজেলার হরিয়ানে অবস্থিত রাজশাহী চিনিকল মাঠে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভাষণ দেবেন।

প্রধানমন্ত্রীর সফরকে ঘিরে রাজশাহীর উন্নয়নে ১৫ দফা দাবি উত্থাপন করেছে রাজশাহী আওয়ামী লীগ। এ ছাড়া রাজশাহী শিল্প ও বণিক সমিতি ১১ দফা এবং রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদ ১৮ দফা দাবি উত্থাপন করেছে। আজকের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী এসব দাবি নিয়ে কী বক্তব্য দেন তার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে রাজশাহীবাসী।

প্রধানমন্ত্রীর সফরকে ঘিরে স্থানীয় আওয়ামী লীগের মধ্যে নতুন করে উদ্দীপনা দেখা দিয়েছে। জনসভায় রাজশাহী ও আশপাশের জেলা থেকে প্রায় ৫ লাখ মানুষের সমাগম ঘটানোর পরিকল্পনা করেছেন আওয়ামী লীগের নেতারা। সকাল থেকেই বিভিন্ন জায়গা থেকে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা জনসভাস্থলের দিকে আসতে শুরু করেছেন। তাঁরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন প্রধানমন্ত্রীকে এক নজর দেখতে।

প্রধানমন্ত্রী যে ৬টি প্রকল্প উদ্বোধন করবেন তার মধ্যে রয়েছে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নবনির্মিত অফিস, বাগমারা উপজেলা কমপ্লেক্সের সম্প্রসারিত প্রশাসনিক ভবন ও হল রুম উদ্বোধন, রাজশাহীর পবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীতকরণ কাজ, মহানগরীর টিকাপাড়ায় আরবান প্রাইমারি হেলথ কেয়ার সার্ভিসেস ডেলিভারি প্রকল্পের আওতায় ছয়তলাবিশিষ্ট সিআরএইচসিসি (কম্প্রিহেনসিভ রিপ্রোডাক্টিভ হেলথ কেয়ার সেন্টার) নির্মাণকাজ, তানোর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীতকরণ ও নগরীর বনলতা বাণিজ্যিক এলাকা সম্প্রসারণ এবং আবাসিক এলাকা উন্নয়ন।

এ ছাড়া একই সময় প্রধানমন্ত্রী আরও ১৭টি প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। প্রকল্পগুলো হলো: রাজশাহীর পদ্মা নদীর সোনাইকান্দি থেকে বুলনপুর পর্যন্ত এলাকা রক্ষা প্রকল্প, পদ্মাপাড়ে ৩১ দশমিক ৬৩ একর জমির ওপর ২৮১ কোটি ১৯ লাখ টাকা ব্যয়ে হাইটেক পার্কের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন, রাজশাহী মহানগরীর তালাইমারী মোড়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্কয়ার নির্মাণ, রুয়েট থেকে রাজশাহী সিটি বাইপাসের খড়খড়ি পর্যন্ত সড়ক নির্মাণ প্রকল্প উল্লেখযোগ্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *