যুবদল নেতা হারুন হত্যা মামলা, ১শ ৬৭ জনের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন

নিজস্ব প্রতিনিধি,
ফেনীতে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ মোঃ কায়সার মোশাররফ ইউসুফ এর আদালতে গতকাল সোমবার ফরহাদনগরের স্বেচ্ছাসেবকদলের নেতা হারুন হত্যা মামলার ১শ ৬৭ জনের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করা হয়েছে। আদালত আগামী ৭ জুন সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করেন।
অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বেঞ্চ সহকারি রাজেন্দ্র কুমার ভৌমিক জানান, অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ মোঃ কায়সার মোশাররফ ইউসুফ এর আদালতে গতকাল সোমবার হারুণ হত্যা মামলার চার্জ গঠন করে সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করা হয়। এ মামলার ৪৮ জন সাক্ষীর মধ্যে পাঁচজনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে। এ মামলার ৭৭ আসামী জামিনে রয়েছে। এ মামলার ৯০ পলাতক রয়েছে।মঙ্গলকান্দি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান দাউদুল ইসলাম মিনার কারাগারে রয়েছে। এডভোকেট গিয়াস উদ্দিন নান্নু ও মেজবাহ উদ্দিন খান মিনারের জামিনের আবেদন করলে জামিন না মঞ্জুর করেন আদালত। অন্যান্য আসামীর পক্ষে আইনজীবী ছিলেন এডভোকেট আবু তাহের, সরফুদ্দিন মাহমুদ, ইউসুফ আলমগীর ও নুরুল ইসলাম।
তিনি আরো জানান, ২০১৩ সালের ৪ ডিসেম্বর ফেনী জেলা বিএনপি শহরে বিক্ষোভ মিছিল করে। মিছিল শেষে ফেরার পথে শহর পুলিশ ফাড়ির সামনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের ধাওয়া পালটা ধাওয়া হয়। বিএনপির নেতাকর্মীরা শহর পুলিশ ফাড়িকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। এক পর্যায়ে পুলিশ আত্মরক্ষার্থে গুলি ছোড়ে। এসময় পুলিশের ছোড়া গুলিতে গুলিবিদ্ধ হয়ে হারুনুর রশিদ ঘটনাস্থলে মারা যায়। হারুন ফরহাদনগর ইউনিয়নের জগতজীবনপুর গ্রামের আবদুস সোবহানের ছেলে। এ ঘটনায় শহর পুলিশ ফাড়ির তৎকালীন ইনচার্জ এসআই কামাল হোসেন বাদী হয়ে যুবদলের সাবেক সভাপতি গাজী হাবিব উল্যাহ মানিক ও সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারীসহ ১শ ৪৯ জন বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করে ১ হাজার থেকে ১ হাজার ২শ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে ফেনী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। ২০১৬ সালের ৫ মে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই কামরুল ইসলাম খাঁন তদন্ত শেষে বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের ১শ ৬৭ জন নেতাকর্মীকে আসামী করে আদালতে চার্জশীট প্রদান করে। আদালত গতকাল সোমবার চার্জ গঠন করে আগামী ৭ জুন সাক্ষগ্রহণের দিন ধার্য করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *