বুদ্ধ ফের আবির্ভূত হলে রোহিঙ্গাদের রক্ষা করতেন: দালাই লামা

মিয়ানমারের সংখ্যাগুরু বৌদ্ধ সম্প্রদায় ও সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে চলমান সংঘাত নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তিব্বতের আধ্যাত্মিক ধর্মগুরু দালাই লামা। তিনিও ১৯৮৯ সালে তিব্বতের স্বাধীনতা সংগ্রামে অহিংস ভূমিকা পালন করার জন্য শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পান।
ওয়াশিংটন ডিসিতে আমেরিকান পিস ইনস্টিটিউটে বক্তৃতাদানকালে তিনি বলেন, একজন নোবেল শান্তি পুরস্কার বিজয়ী হিসেবে মায়ানমারের নেত্রী অং সান সূচীর নৈতিক দায়িত্ব হচ্ছে সংখ্যাগুরু বৌদ্ধ সম্প্রদায় ও সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে চলমান সংঘাত নিরসন করা। ২০১৬ সালে ক্ষমতায় আসার পরই সূচীর সঙ্গে বৈঠক করেন জানিয়ে দালাই লামা বলেন, আমি সূচীকে রোহিঙ্গা ইস্যুতে আরো খোলাখুলিভাবে আলোচনার জন্য অনুরোধ জানিয়েছি। যদিও মানবাধিকার সংস্থা সমূহ রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে সূচীর নীরবতার তীব্র নিন্দা করে আসছে।
দালাই লামা আরো বলেন, ‘মিয়ানমারের মুসলমানদের প্রতি কিছু বৌদ্ধ ভিক্ষুর ঘৃণাত্মক দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে। যারা এ ধরণের চিন্তা ভাবনা ধারণ করেন, তাদেরকে তিনি বুদ্ধের চেহারা স্মরণ করতে বলেন।’ তিনি এও বলেছেন, ‘আজ যদি বুদ্ধ আবির্ভূত হতেন, তাহলে তিনি মায়ানমারের অসহায় ওইসব মুসলিম ভাই-বোনদের রক্ষা করতেন।’ টাইমস অব ইন্ডিয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *