’ফেনী পৌরসভাকে দলীয় কার্যালয়ে ব্যবহার করবেন না আলাল’

ফেনী পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনিত ধানের শীষের মেয়র প্রার্থী আলাল উদ্দিন আলাল নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। বৃহস্পতিবার রাতে ফেনী শহরের একটি চাইনিজ রেস্টুরেন্টে তিনি ১৯ দফা ইশতেহার উপস্থাপন করেন।

 

ইশতেহার ঘোষণাকালে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক শেখ ফরিদ বাহার, যুগ্ম আহবায়ক গাজী হাবিবুল্লাহ মানিক, ইয়াকুব নবী, আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারী, দেলোয়ার হোসেন বাবুল, এডভোকেট মেজবাহ উদ্দিন, আলা উদ্দিন গঠন সহ নেতৃবৃন্দ।

 

১৯ দফা নির্বাচনী ইশতেহার হলো- পরিকল্পিত নগরায়ন শহর সবুজায়ন সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত এবং নান্দনিক পৌরসভা গঠন, পাগলি ছড়া, দমদমা খাল, মধুয়াই খাল, ভোলভোলা খাল সংস্কার পূর্বক জলাবদ্ধতা নিরসন করে ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন, রাতের মধ্যে বজ্য অপসারণসহ রাস্তাঘাট পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা, বর্তমানে ডোবা-নালা পরিষ্কারের নামে পৌরসভার লক্ষ লক্ষ টাকা লোপাট করা হচ্ছে, আমি তা করবো না আমি সত্যিকারের ময়লা আবর্জনা পরিষ্কারের ব্যবস্থা করে বাসযোগ্য একটি আধুনিক শহর গড়ে তুলব, পৌরবাসীর ছেলে-মেয়ের শিক্ষার উন্নয়নের অন্যতম একটি করে বালক-বালিকাদের জন্য মানসম্মত মাধ্যমিক স্কুল প্রতিষ্ঠা করে দুটি সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উপর চাপ কমানোর জন্য কাজ করব,

 

যানজট নিরসনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা সহ হকারদের পুনর্বাসনসহ উৎপাদন করে জনগণের ওয়াকওয়ে পুনরুদ্ধার করব, হকারদের পুনর্বাসন পূর্বক রাজাঝির দীঘি সৌন্দর্য পুনরুদ্ধার করে মানুষের সকাল-বিকেল নির্বিঘ্নে হাঁটার ব্যবস্থা করা, জহির রায়হান হল পুনঃপ্রতিষ্ঠাসহ শিশু কিশোর যুবক যুবতীদের সাংস্কৃতিক চর্চার সুযোগ সৃষ্টি করা, পৌরসভার উদ্যোগে বিনোদন পার্ক স্থাপনসহ কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণ, মা ও শিশুদের সময়মতো টিকা দেয়ার স্থান বিন্যাস করব, কিশোরদের খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনে ফিরিয়ে এনে বিপথগামিতা থেকে রক্ষা করবো এবং বাঁচাবো কিশোরদের পরিবারকে, শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে গণশৌচাগার নির্মাণ করা, যানজট নিরসনের শহরের অবৈধ বাস-সিএনজি টমটম ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা,

 

ফেনী শহর এখন যানজটের শহর চাঁদার বিনিময় অবৈধ বাস-সিএনজি টার্মিনাল গড়ে তোলা হয়েছে আমি এসব অবৈধ টার্মিনাল উচ্ছেদ করব, ব্যবসায়ীদের ট্রেড লাইসেন্স প্রাপ্তিতে সহজীকরণ করে ব্যবসায়ী বান্ধব হওয়া এবং দীর্ঘমেয়াদী বাণিজ্য তাঁত বস্ত্র শিল্প মেলা বন্ধ করব, ফেনী জেনারেল হাসপাতাল কি মেডিকেল কলেজে রূপান্তর এবং ফেনীতে পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করার জন্য কাজ করব, ফেনী পৌরসভাকে দলীয় কার্যালয়ে ব্যবহার করব না এবং সকল টেন্ডার প্রকৃত ঠিকাদারদের জন্য উম্মুক্ত করব, মেয়র নির্বাচিত হলে কোন প্রকার ভাতা গ্রহণ করব না,

 

অবহেলিত ওয়ার্ডসমূহ এ উন্নয়ন কর্মকাণ্ড অব্যাহত রেখে নাগরিক সুবিধা প্রদান করা, বর্তমানে পৌরসভার আশেপাশের রমরমা নিরাপদ মাদক ব্যবসা চলছে আমি নির্বাচিত হলে তাদের এসব কর্মকাণ্ড বন্ধ করব মাদক মুক্ত শহর করার আপ্রান চেষ্টা করব।

 

তিনি আরো উল্লেখ করেন, দেশ সংকটময় সময় অতিবাহিত করছে, সর্বত্রই দুর্বৃত্তায়ন, দুর্নীতি-স্বজনপ্রীতি, টেন্ডারবাজি রাষ্ট্রীয় সম্পদ লুণ্ঠনের প্রতিযোগিতা চলছে। নেই ন্যূনতম জবাবদিহিতা ভোটাররা আজ চরম অবহেলিত গণতন্ত্রহীন রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ মহল। এই চরম অব্যবস্থাপনা থেকে মুক্তি পেতে এবং আন্দোলনের অংশ হিসেবে তিনি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছেন। দীর্ঘদিন নাগরিক সুবিধা বঞ্চিত অবহেলিত জনগণের উন্নত নাগরিক সুবিধা প্রদানের লক্ষ্যে পরিবর্তনের জন্য ধানের শীষ মূল্যবান ভোট প্রার্থনা করেন, কারন একটি ভোট হতে পারে ক্ষমতা বদলের হাতিয়ার। আজ শুধু তিনি বলতে চান পরিবর্তনের এই পৃথিবীতে তিনিও আপনাদের সুন্দর নাগরিক জীবন উপহার দেয়ার জন্য বদ্ধপরিকর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *