ফেনী কলেজে ৪০ বছর পর ভিপি-জিএস নির্বাচিত

নিজস্ব প্রতিনিধি,

শত বছরের প্রাচীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ফেনী সরকারি কলেজ। এ জনপদের ঐতিহ্যবাহী এ বিদ্যাপিঠে পড়াশোনার পাশাপাশি রাজনৈতিক চর্চাও বেশি। এখানে আধিপত্য বিস্তার করতে সবদলের জেলা পর্যায়ের শীর্ষ নেতাদের নজর।

বিভিন্ন সূত্র জানায়, স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে ১৯৭৩ সালে ছাত্র সংসদের নির্বাচন হয়েছিল। তখনকার নির্বাচনে জাসদ ছাত্রলীগের জেলা সহ-সভাপতি আবু তাহের ভূঞা ভিপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। পরেরবার নির্বাচন হয়েছে ১৯৭৭ সালে। সেবারও ভিপি নির্বাচিত হয়েছিলেন জাসদ ছাত্রলীগের তৎকালীন সদর থানা সাধারণ সম্পাদক জাফর উল্লাহ খান। যিনি পরবর্তীতে সদর উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। এরপর আর কোন নির্বাচন হয়নি। ১৯৯২ সালে একবার উদ্যোগ নেয়া হলেও তা ভেস্তে যায়।

স্বাধীনতা পূর্ব সময়ে ৭০ সালে ছাত্রলীগের প্যানেলে অধ্যাপক জয়নাল আবদীন ভিপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। তখন থেকেই ভিপি জয়নাল হিসেবেই তার পরিচিতি। তার সাথে জিএস হয়েছিলেন মিরসরাইয়ের কামাল উদ্দিন। ৬৬ সালে ভিপি নির্বাচিত হন মিরসরাইয়ের করেরহাট এলাকার বাসিন্দা ছাত্রলীগ প্যানেলের আলতাফ হোসেন।

তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় নবনির্বাচিত ভিপি তোফায়েল আহম্মদ তপু ফেনীর সময় কে জানান, ছাত্র সংসদের গৌরব ফিরিয়ে আনাই আমার লক্ষ্য। ছাত্রসমাজের সবধরনের সংকট নিরসনে ছাত্র সংসদ কাজ করবে। এতে করে প্রাণের সংগঠন ছাত্রলীগকে আরও জনপ্রিয় করে তোলার সুযোগ হয়েছে। নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপির নির্দেশনা অনুযায়ী শেখ হাসিনার স্বপ্ন বাস্তবায়নই হবে ছাত্রলীগের অন্যতম কাজ।’

নবনির্বাচিত জিএস রবিউল হক রবিন জানান, ছাত্র সংসদ হবে রাজনীতি চর্চার কেন্দ্রবিন্দু। নবনির্বাচিতরা ছাত্রসমাজের অধিকার রক্ষায় সর্বদা আত্মনিয়োগ করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *