ফেনীতে অপহৃত শিশুকে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা

নিজস্ব প্রতিনিধি,

ফেনীতে খেলা-ধুলা নিয়ে সামান্য কথা-কাটাকাটিকে কেন্দ্র করে আরাফাত হোসেন (১৩) নামের এক স্কুল ছাত্রকে হত্যা করে মাটিতে লাশ পুতে ফেলার অভিযোগ উঠেছে মো. সাব্বির হোসেন (১৫) নামের এক বখাটের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় অভিযুক্তের মা ও ভাইকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার (২৮ জানুয়ারী) সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে শহরের পাঠানবাড়ি এলাকার জিবি টাওয়ারের পাশে পরিত্যক্ত খালি জায়গা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ। এর আগেরদিন রাত সাড়ে ৯টার কিশোর আরাফাত হোসেন নিখোঁজ হয়।

নিহত আরাফাত হোসেন ফেনী পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজে ৭ম শ্রেণি ছাত্র। আবুদাবী প্রবাসী জসিম উদ্দিনের ছেলে। তারা শহরের পাঠান বাড়ি এলাকার একটি ভাড়া বাসায় বেশ কিছুদিন ধরে বসবাস করে আসছিল।

নিহত আরাফাত হোসেনের মামা এরশাদ হোসেন জানান, পাড়ার বখাটে সাব্বিরের সাথে তার ভাগিনা আরাফাত হোসেনের খেলাধুলা নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এ ঘটনার জেরে বখাটে সাব্বির রোববার রাত সাড়ে ৯টার আরাফাতকে জেবি টাওয়ারের পাশের পরিত্যক্ত নির্জন জায়গায় ডেকে নিয়ে যায়। রাত সাড়ে ১০টার দিকে সাব্বির ওই স্থান থেকে বেরিয়ে আসার সময় এলাকাবাসী আরাফাতের বিষয়ে জানতে চাইলে সে দৌঁড়ে পালিয়ে যায়। এরপর থেকেই আরাফাত নিখোঁজ। অনেক খোঁজাখুজির পর তাকে না পেয়ে স্বজনরা ফেনী মডেল থানায় অভিযোগ করেন।

পরদিন সকালে খোঁজাখুজির এক পর্যায়ে ওই পরিত্যক্ত জায়গাটির এক কোনে মাটিতে পুতে রাখা একটি পা দেখতে পেয়ে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করলে স্বজনরা আরাফাতের মরদেহ সনাক্ত করে। নিহত আরাফাতের মামা দাবী করেন বখাটে সাব্বির আরাফাতকে হত্যা করে লাশ মাটি চাপা দেয়।

ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসা ফেনীর পুলিশ সুপার এস.এম জাহাঙ্গীর আলম সরকার জানান, চলাফেরা করতে গিয়ে কোন দন্ধ থাকতে পারে। একেবারে সামান্য ব্যাপার নিয়ে এ ঘটনা ঘটতে পারে, তার পরেও আমরা তদন্ত করে পরিবর্তী ফলোআপে জানাতে পারবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *