ফেনীতে ২৮ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৩ সদস্য গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিনিধি,
ফেনীতে ২৮ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। ২৯ ডিসেম্বর রাতে তাদের গ্রেফতার করা হয় । আজ ৩০ ডিসেম্বর বেলা ১১ টার দিকে পুলিশ সুপার সভাকক্ষে মিট দ্য প্রেসে সাংবাদিকদের ফেনীর পুলিশ সুপার খোন্দকার নুরুন্নবী এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন গত ১০ অক্টোবর ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড শাখা হতে ২৭ লাখ ৬১ হাজার পাঁচশত টাকা উত্তোলন করেন মুহাম্মদ জাপর শাহীন। তিনি ইসলামী ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং সোনাগাজীর কুটির হাট শাখার  সত্ত্বাধিকারী। ওই দিন কুঠিরহাট সোনাগাজী যাওয়ার সময় বেলা ৩ তিনটার সময় দাগনভূঞা উপজেলার মাতুভূঞা ইউপির বেকের বাজার উত্তর আলীপুর সৌদিয়া মসজিদের সামনে উপস্থিত হওয়া মাত্র একদল আন্তঃজেলা ডাকাত ভুয়া ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে মুহাম্মদ জাপর শাহীনকে একটি সিলভার রঙের প্রাইভেটকারে জোরপূর্বক উঠিয়ে নিয়ে কুমিল্লা জেলার সদর দক্ষিণ থানা দূর্গাপুর নামক স্থানে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে ফেলে রেখে টাকা নিয়ে যায়।
এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী মুহাম্মদ জাপর শাহীন গত ২১ অক্টোবর দাগনভূঞা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পরপর ফেনী জেলা পুলিশ সুপার  খোন্দকার নুরুন্নবীর দিকনির্দেশনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ইনচার্জ এ এন এম নুরুজ্জামানের নেতৃত্বে গোয়েন্দা দল ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে। বিজ্ঞানভিত্তিক তদন্তে আসামিদের শনাক্ত করে তিনজন আন্তঃজেলা ডাকাতকে গ্রেফতার করে।
ডাকাতির ঘটনার ব্যবহৃত প্রাইভেটকার  জব্দ করা হয়। এ ডাকাতির ঘটনায় লুন্ঠনকৃত ৫০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।
তদন্তে জানা যায় উক্ত ডাকাতদল ঢাকাসহ আশপাশের জেলার বিভিন্ন ব্যাংকের সামনে অবস্থান করে প্রতিনিয়ত ডাকাতি সংঘটিত করে থাকে। তাদের নামে দেশের বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।  তাদের একজনের নাম মোঃ জাকির হোসেন, পিতা- মনিরুদ্দীন হাওলাদার, মাতা রোশন আরা বেগম। গ্রাম পঞ্চগড় আলিয়া হাওলাদার বাড়ি, থানা-তালতলা বরগুনা।
আরেকজনের নাম মোঃ সবুজ মিয়া। পিতা মোঃ ইব্রাহিম আকন্দ মাতা মুহাম্মদ সবুরা। জেলাদার পাড়া পুরান বগুড়া, ফাপর পৌরসভা। এবং তিন নাম্বার ব্যক্তি হচ্ছেন মোহাম্মদ ইমরান নাজির, পিতা- মোঃ আবু জাফর, মাতা নানচু বেগম। স্থায়ী ঠিকানা জহিরুল সরকার বাড়ির পাশে, থানা চাটমোহর, জেলা পাবনা।
Aa

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *