ফেনীতে নৌকার সকল প্রার্থী জয়ী

জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা পিকেএম এনামুল করিম ফেনী সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে তৃতীয়বার বিজয়ী আবদুর রহমান বিকম এর হাতে বিজয় ঘোষণারপত্র তুলে দেন।

ফেনীর চারটি উপজেলায় শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এরমধ্যে দুটি উপজেলায় চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ প্রার্থীরা বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন।
রবিবার সন্ধ্যায় জেলা রিটানিং কর্মকর্তা পিকেএম এনামুল করিম বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন।
ফেনী সদর উপজেলার ১২৭টি কেন্দ্রে ইবিএমে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। প্রাপ্ত ফলাফলে এ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আবদুর রহমান বিকম (নৌকা) ৪১ হাজার ৭৬৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। অপর দিকে তার প্রতিদ্বন্দ্বি সতন্ত্র প্রার্থী এ আজহারুল হক আরজু (আনারস) পেয়েছেন ৫ হাজার ২৫০ ভোট। এর আগে ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন আওয়ামীলীগের দুই প্রার্থী।
ফুলগাজী উপজেলায় ৩২টি কেন্দ্রে আওয়ামীলীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী আবদুল আলিম (নৌকা) ৩৬ হাজার ৯৬৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। সদ্য নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানো সতন্ত্র প্রার্থী রামিম হোসেন (কাপ পিরিস) পান ৬২৯ ভোট। ভাইস চেয়ারম্যান পদে আবুল আলম আজমির (তালা) ৩৪ হাজার ৯৬৫ ভোট প্রতিদ্বনিদ্ব অনিল বণিক (টিয়া পাখি) পান ২ হাজার ৩৯৫ ভোট। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মঞ্জুরা আজিজ (কলস) ৩৫ হাজার ৬১৩ ভোট ও প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী বিবি মরিয়ম (ফুটবল) পান ২ হাজার ২ ভোট।
সোনাগাজী উপজেলার ৬৯টি কেন্দ্রে ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৮২ হাজার ৭০১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী শাখাওয়াতুল হক বিটু (তালা)। অপরদিকে তার প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী একই দলের সতন্ত্র প্রার্থী দিন মোহাম্মদ (টিউবওয়েল) ৩ হাজার ৬৮৬ ভোট। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে জোবেদা নাহার মিলি (কলস) পেয়েছেন ৮২ হাজার ৬০৬ ভোট ও তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মোর্শেদা আক্তার (পদ্ম ফুল) পেয়েছে ৩ হাজার ৬০৫ ভোট। এর আগে চেয়ারম্যান পদে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন আওয়ামীলীগের কেন্দ্রিয় নেতা জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটন।
 দাগনভূঞা উপজেলায় ৬৪টি কেন্দ্রে ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ সমর্থিদ শাহিন মুন্সি (তালা) ৭৪ হাজার ৭৭৬ পান অন্যদিকে তার প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী এডভোকে রবিউল রবি (লাঙ্গল) পান ৩ হাজার ৫২০ ভোট। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে রোকসানা আক্তার (কলস) ৭৩ হাজার ৭২৩ ভোট পান ও প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী ফারহানা আইরিন (লাঙ্গল) পান ৩ হাজার ৮৯৬ ভোট। যদিও এর আগে চেয়ারম্যান পদে দিদারুল কবীর রতন আগেই বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।
উল্লেখ্য, ফেনীর ৬টি উপজেলার মধ্যে পরশুরাম উপজেলা চেয়ারম্যানসহ সব কটি পদে আওয়ামীরীগ প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। আইনি জটিলতার কারণে ছাগলনাইয়া উপজেলার নির্বাচন স্থগিত করেছে নির্বচন কমিশন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *