ফেনীতে দরপত্র জমাদানে বাধা, ঠিকাদার অপহরণ-পরে উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৪

নিজস্ব প্রতিনিধি,

ফেনীতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গ্রাম পুলিশের

(চৌকিদার দফাদার) পোষাক সরবরাহের দরপত্র জমাদানে বাধা দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। দরপত্র জমা দিতে আসা একজন ঠিকাদারকে দুর্বৃত্তরা অপহরণ করেছে। জেলা গোয়েন্দা পুলিশ

সন্ধ্যায় তাঁকে উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অপহৃত ঠিকাদারের নাম খলিলুর রহমান। তিনি টাঙ্গাইলের ধরবাড়ী উপজেলার বাসিন্দা,

ঢাকায় ব্যবসা করেন। গ্রেপ্তার চারজন হলেন সফিকুল ইসলাম সম্রাট (২৪), মো. সালা উদ্দিন (২০), মো. রাসেল হোসেন (২৭) ও কামরুল হাসান সাব্বির (২৩)। তাদের সবার বাড়ী ফেনী সদর উপজেলায়।

 

পুলিশ জানায়, রোববার ফেনী জেলা প্রশাসকের কার্যালযে জেলার চৌকিদার দোফাদারদের পোষাক সরবরাহের দরপত্র জমা দেওয়ার দিন ধার্য ছিল। নির্ধারিত দিনে দরপত্র জমা দেওয়ার জন্য যান ঠিকাদার খলিলুর রহমান। জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ে যাওয়ার সময় কয়েকজন দুবৃত্ত ঠিকাদার খলিলের রহমানের গতিরোধ করে এবং তাকে দরপত্র জমা দিতে নিষেধ করেন। তিনি তাদের নিষেধ অমান্য করে দরপত্র বাক্সে দরপত্র জমাদানের চেষ্টা করেন।

এ সময় দুর্বৃত্তরা তাকে মারধর করে, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও তাঁর মুঠোফোনসেট ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পরে তাকে জোরপূর্বক অপহরণ করে অন্যত্র নিয়ে যায় এবং স্থানীয় একটি গণমিলনায়তনে আটক করে রাখেন। খবর পেয়ে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) বিভিন্ন স্থানে তল্লাশীর পর সন্ধ্যায় ওই গণমিলনায়তন থেকে তাকে উদ্ধার করেন এবং অপহরণ ঘটনায় জড়িত চারজনকে আটক করা হয়।

 

এ ঘটনায় অপহৃত ঠিকাদার খলিলুর রহমান বাদী হয়ে ফেনী মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এদিকে ফেনী জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজজামান জানান, রোববার জেলার চৌকিদার দফাদারদের পোষাক সরবরাহের দরপত্র জমা দেওয়ার দিন ধার্য ছিল। একজন ঠিকাদারের পক্ষে মুঠোফোনে অভিযোগ করা হয়-তাকে দরপত্র জমা দিতে দেওয়া

হয়নি।

 

ফেনী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলমগীর হোসেন দরপত্র জমা দিতে আসা একজন ঠিকাদারকে অপহরণ ও উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের ও জড়িত চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *