ফেনীতে গাছে ঝুলন্ত অর্ধ গলিত লাশের পরিচয় পাওয়া যায়নি

নিজস্ব প্রতিনিধি

ফেনী সদর উপজেলার পাঁচগাছিয়া ইউনিয়নের ইলাশপুর গ্রামে একটি মৎস্য খামারের পাশে কবরস্থানের একটি গাছ থেকে এক অজ্ঞাত ব্যক্তির (৫৫) ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।গতকাল সোমবার সকালে এ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছিল কিন্তু সেখানে ময়না তদন্ত না করতে পারার কারণে আজ মঙ্গলবার ভোরে ময়না তদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেলে পৌঁছানো হয়েছে। সেখানে ময়না তদন্তের পাশাপাশি ডিএনএ টেস্টও করা হবে বলে জানিয়েছেন মামলার আইও ( তদন্তকারী কর্মকর্তা) এসআই আশরাফুল।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, সোমবার সকালে স্থানীয় লোকজন গ্রামের ওই কবরস্থানের পাশ দিয়ে চলাচলের সময় তাদের নাকে দুর্গন্ধ লাগে।পরে তারা এগিয়ে গিয়ে কবরস্থানের একটি গাছের সাথে এক ব্যক্তির ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায়।বিষয়টি স্থানীয় জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে ফেনী থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়।খবর পেয়ে পুলিশ ওই স্থান থেকে গাছে ঝুলানো লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।

স্থানীয় পাঁচগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষেদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন জানান, গাছে ঝুলন্ত লাশের খবর পেয়ে এলাকার বহু লোক দেখার জন্য জড়ো হয়। কিন্তু দুর্গন্ধে কেউ কাছে যেতে পারেনি। তারপরও নাক বেঁধে অনেকেই ওই লোকটিকে চেনার চেষ্টা করেছে। কিন্তু তার কোন পরিচয় পাওয়া যায়নি। তিনি ধরনা করেন, ওই লোকটিকে ২-৩ দিন আগে অন্য কোথায় নির্মম ভাবে পিটিয়ে হত্যার পর লাশটি গোপনে ওই স্থানে নিয়ে ফাঁসির মত করে গলায় দড়ি দিয়ে গাছে ঝুলিয়ে রেখে গেছে।

ওই ব্যক্তির গায়ে একটি স্যান্ডে গেঞ্জি ও পরনে একটি লুঙ্গি ছিলে। তাছাড়া পাশের পাশেরই একটি সাদা পাঞ্জাবী পড়ে ছিল।পাঞ্জাবীর এক পকেটে একটি কালো মাস্ক ওপর পকেটে ১৪ টাকা পাওয়া যায়।

পুলিশ ধারনা করছে ২-৩ দিন আগে অন্য কোন এলাকায় ওই লোকটাকে এলোপাথাড়ী মারধর ও পিটিয়ে হত্যার পর লাশটি ওই স্থানে গাছে ঝুলিয়ে রেখে যাওয়া হয়েছে। পঁচা শরীরের আঙ্গলের চাপও নেওয়া যায়নি। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত শুরু করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *