ফুলগাজী স্কয়ার হাসপাতাল শেয়ার বিক্রির নামে প্রতারণা > চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

ফেনী প্রতিনিধি, ২২ মার্চ ২০১৮
ফেনীর ফুলগাজী স্কয়ার হাসপাতালের চেয়ারম্যান এটিএম এয়াছিন সাদেকের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা করেছে কয়েকজন বিনিয়োগকারী। ভূয়া রেজুলেশন তৈরী করে শেয়ার বিক্রির টাকা আত্মসাতের অভিযোগে চেয়ারম্যান ও তার সঙ্গীয় প্রতারকচক্রের বিরুদ্ধে পুলিশ ও র‌্যাবের কাছে মামলা করেছে ক্ষতিগ্রস্থরা। পাশাপাশি সাংবাদিকদের কাছে লিখিত অভিযোগে দ্রুত তাদের টাকা ফেরতের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি দাবি জানান তারা।

৩ লাখ টাকায় ত্রিশটি শেয়ার ক্রেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, টাকা ফেরত না পেয়ে র‌্যাব –বরাবর একটি লিখিত আবেদন করে অনুলিপি ফেনী জেলা প্রশাসক, ফেনী সিভিল সার্জন ও সাংবাদিকদের দিয়েছেন । আবেদনে তিনি জানান, প্রতিমাসে লোকসান হবার অযুহাত দেখিয়ে টাকা ফেরত দিতে অস্বকৃতি জানান চেয়ারম্যান বিপ্লব। এর কিছু দিন পূর্বে ডাঃ মোমিন নামে এক বিনিয়োগকারীর নিকট থেকে শেয়ার দেয়ার নামে মোটা অংকের টাকা নেয় বিপ্লব। টাকা ফেরত না পেয়ে ডাঃ মোমিন কোর্টে মামলা দায়ের করেন। পরে চেয়ারম্যান বিপ্লব  কোর্ট থেকে জামিন লাভ করে।

ফুলগাজী বাজারে ফুলগাজী স্কয়ার হাসপাতাল এন্ড ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক ল্যাব নামের অনুমোদনহীন এ হাসপাতালের কাজ শুরু করেই প্রতারণার ফাঁদ পাতে এ চক্রটি। বিনিয়োগকারী সংগ্রহে প্রবাসীসহ এলাকার গুরুত্বপূর্ণ লোকদের মাঝে এজেন্ট নিয়োগ দেয়। এ পর্যন্ত শেয়ারহোল্ডার করার নামে প্রবাসীসহ শতাধিক বিনিয়োগকারীর সঙ্গে চুক্তি স¤পাদন করেছে তারা। চুক্তির সময় প্রতি মাসে লভ্যাংশের টাকা বিনিয়োগকারীদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে যথাসময়ে পাঠিয়ে দেয়া হবে এ মর্মে কথিত শেয়ার সনদে ঘোষনা থাকলেও বাস্তবে প্রতিফলন ঘটেনি । এমন প্রতারণার মাধ্যমে ইতিমধ্যে হাতিয়ে নেয়া হয়েছে প্রায় কয়েক কোটি টাকা। শেয়ার মলিকরা প্রতিনিয়ত পাওনা টাকার জন্য ধরণা দিলে ‘সময় নেই, ব্যস্ত আছি’ বলে ফোন কেটে দেয় প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান এটিএম এয়াছিন সাদেক ওরফে বিপ্লব। এছাড়া বিভিন্ন ভয়ভীতি, পুলিশ ও মামলার ভয় দেখিয়ে বিনিয়োগকারীদের হুমকী দিয়ে আসছে ।

আইনের তোয়াক্কা না করে দেদারছে চলছে প্রতিষ্ঠানের শেয়ার বিক্রি। কারো কাছ থেকে এক লাখ, কারো কাছ থেকে ৫ লাখ, আবার কারো কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা বিনিয়োগ নেয়। এমনই প্রবাসী পেশাজীবির কাছ থেকে ৪ ল টাকার অগ্রিম মানি রশিদ প্রদান করে ৩ ল টাকা বিনিয়োগ নেয়।

এ বিষয়ে জানতে এটিএম সাদেকের কাছে জানতে মুঠোফোনে যোগাযোগ করতে গেলে তিনি কল রিসিভ করেননি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *