ফুলগাজীতে ভূত তাড়াতে যুবককে পিটিয়ে হত্যার স্বীকার ওঝার

নিজস্ব প্রতিনিধি

জ্বীন তাড়ানোর নামে মনির আহমদ মজুমদার নামে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যার কথা স্বীকার করে ভন্ড হুজুর সহিদ উল্লাহ শুক্রবার (২৯ জুন) ফেনীর বিচারিক হাকিম সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মো. জাকির হোসেনের আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। আদালত তাঁর জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ফুলগাজী থানার পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) আনবিক চাকমা জানান, ভন্ড হুজুর সহিদ উল্লাহ আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে ঝাঁড়-ফুঁ দিয়ে অসুস্থ মনির আহম্মদকে ঘরের খুঁটির সাথে দড়ি দিয়ে শক্তভাবে বেঁধে নাকের ভিতরে পোঁড়া মরিচ ও গরম সরিষার তৈল ঢুকিয়ে দেন এবং গাছের ডাল দিয়ে বেদমভাবে পেটানোর কথা স্বীকার করেন ।
এক পর্যায়ে অসুস্থ মনির আহম্মদ মজুমদারকে গুরুতর আহত অবস্থায় স্হানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
উল্লেখ গত বৃহস্পতিবার সকালে জ্বীন তাড়ানোর নামে মো. মনির আহমদ মজুমদারকে পিটিয়ে হত্যা করার অভিযোগ উঠে। সে পরশুরাম উপজেলার উত্তর গুথুমা গ্রামের বাসীন্দা। উপজেলার মুন্সীরহাট ইউনিয়নের দক্ষিণ তারালিয়া গ্রামে তাঁর শ্বশুর বাড়িতে এঘটনাটি ঘটে।
এঘটনায় ফুলগাজী থানার পুলিশ হত্যার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ভন্ড হুজুর সহিদ উল্লাহকে গ্রেপ্তার করেন।
এব্যাপারে নিহতের বাবা আবুল কালাম মজুমদার বাদী হয়ে ভন্ড হুজুর সহিদ উল্লাহ ও তার সহযোগী রবিউল হককে আসামি করে ফুলগাজী থানায় একটি হত্যা মামলা রুজু করেছেন।

ফুলগাজী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.হুমায়ূন কবির মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন ভন্ড হুজুরের এক সহযোগী পলাতক রয়েছে। তাকেও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *