প্রেমিকের হাতে খুন হন এসএসসি পরীক্ষার্থী রত্না !

নিজস্ব প্রতিনিধি,  ২ মার্চ ২০১৮ :
এসএসসি পরীার শেষ দিনে শিরীন সুলতানা রত্না (১৬) নামের এক ফলপ্রার্থীকে বৃহ¯পতিবার সন্ধ্যায় ফেনী শহরের আনোয়ার উল্যাহ সড়কে গলা কেটে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে বিপ্লব নামের এক যুবককে আটক করেছে। একটি রক্তমাখা ছোরা উদ্ধার করেছে ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানায়, ওই সড়কে সুলতানা হক ম্যানশনের ৫তলা ভবনের ৩য় তলায় সহপরিবারে বসবাস করে শিরীন সুলতানা রত্নার বাবা আমিনুল হক সৌদি প্রবাসী। রত্না শহরের পৌর বালিকা বিদ্যা নিকেতন থেকে এ বছর ব্যবসা শিক্ষা বিভাগ থেকে এসএসসি পরীা দিয়েছে। গতকাল বৃহ¯পতিবার ব্যবহারিক পরীা শেষ হয়। তার মা সালমা আক্তার জানান, বিকালে তিনি পাশের বাসা থেকে এসে শয়ন কে মেয়ের গলা কাটা লাশ দেখে চিৎকার করে উঠেন। এ সময় আশপাশের লোকজন এসে পুলিশে খবর দেয়।

স্থানীয়দের সহযোগিতায় পুলিশ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে শাহাদাত হোসেন বিপ্লব নামে এক যুবককে আটক করে। ওই করে বাথরুম থেকে পুলিশ ঘটনায় ব্যবহৃত রক্তমাখা ছুরি উদ্ধার করে। স্থানীয়রা জানায়, আটক বিপ্লব এর খালা ইয়াতুর বেগম লিপি একই বাসায় ৪র্থ তলায় ভাড়া থাকেন। বিপ্লব লীপুর জেলার রামগতি চর আলেক জেন্ডার সরকারি কলেজে উচ্চ মাধ্যমিকের ছাত্র। খালার বাসায় বেড়ানোর সুবাদে রতœার সাথে তার প্রেমের স¤পর্ক গড়ে উঠে। গতকাল মায়ের অনুপস্থিতে বিপ্লব রতœার কে যায়। পুলিশের ধারণা কোন বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে সে ছুরি দিয়ে
রত্নাকে হত্যা করে।

ফেনী মডেল থানার ওসি রাশেদ খান চৌধুরী এসএসসি ফল প্রার্থীকে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এক যুবককে আটকের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। এ ব্যপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে তিনি জানান।
পুলিশের দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানিয়েছে, জিজ্ঞাসাবাদে আটক বিপ্লব হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করেছে। নিহত রত্নার লাশ ফেনী আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের বাড়ি ফেনী সদর উপজেলার ফরহাদ নগর ইউনিয়নের কাটামোবারক ঘোনা গ্রামে। দুই বোনের মধ্যে সে ছোট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *