পাঁচগাছিয়ার জমিদার বসুমিয়ার ঐতিহ্য ধরে এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় (পর্ব-৬)

সৌরভ পাটোয়ারী, ফেনী
জমিদার বসুমিয়ার বাড়ি ফেনী সদর উপজেলার পাঁচগাছিয়ার মাথিয়ারা গ্রামে অবস্থিত। ঘোড়ার পিঠে করে ১৫ তালুকের খাজনা আদায় করতো জমিদার বসু মিয়ার পিতা ইব্রাহিম ভূঞা ও দাদা তনু ভূঞা ।

 

১৯৪৬ এর দিকে ব্রিটিশ শাসন আমলে ভূঞা কার্যকলাপের প্রতি সন্তুষ্ট হয়ে চৌধুরী উপাদি দেন ব্রিটিশ শাসকরা। পরবতিতে বিশাল ভূ-সম্পত্তির মালিক বনে যান তারই নাতি বসু মিয়া চৌধুরী। জেলায় যাকে বর্তমানে এক নামে চিনে-জানে তিনি বসু মিয়া চৌধুরী।

জমিদার বসুমিয়ার পুরাতন বাড়ি

জমিদার তনু  ভূঞা নাতির ঘরের পুতি সাইফুল ইসলাম লিহন চৌধুরী জানান, ফেনী শহরের যে জায়গায় সে জায়গাটি তিনি ক্রয় করে ঘোড়া রাখতেন।

ফেনী সদর উপজেলার পাঁচগাছিয়ার ইউপির মাথিয়ারা গ্রামের বসু মিয়া। তার নাতি পুতিরা এখন লন্ডন আমেরিকায় সিটিজেন। ব্যবসা-বানিজ্য, অর্থ, ক্ষমতা সবই আছে তাদের। কিন্তু নেই ঐতিহ্যের রাজ প্রসাদ ভবন ।  প্রায় ২ শতবর্ষী ভবন স্মৃতি ভেঙ্গে সেখানে নতুন অট্রালিকা স্থাপন করা হয়েছে।

বিলিন হয়ে গেছে জমিদার মালেক পাটোয়ারী

ফেনী সদর উপজেলার বালিগাও গ্রামে অবস্থিত জমিদার আবদুল মালেক পােটায়ারী বাড়ি। পরবর্তিতে হাজী মো: ফয়েজ চেয়ারম্যান পাটোয়ারী। মালেক পাটোয়ারীর জিম্মদশায় এখানে যে বাড়ি ছিল তা ভেঙ্গে নতুন দ্বিতল বিশিষ্ট ভবন করা হয়েছে।

জমিদার পূতি নুরুল আবসার জানান, তাঁর দাদা ১১ তালুকের খাজনা আদায় করতো। কালের বির্বতনে পূর্ব পুরুষের সাথে একে একে সব শেষ হয়ে গেছে। তৎসময়ে নির্মিত পুরাকীতির্, মন্দির ঐতিহ্যবাহী বাড়ীর সুন্দর্য্য পুকুরঘাট ইতিহাসের সা¶ী হয়ে আজ ও দাড়িয়ে আছে সেই স্মৃতিচিহ্ন। বাড়ি গুলো পুরানো হলেও এখানে রয়েছে মনোরম পরিবেশ। পুরো জমিদার বাড়ি বিশাল সম্পত্তি রয়েছে ।
ছাগলনাইয়া থানার ইউএনও কাজী শাহিদুল ইসলাম জানান, সাত মন্দির ও রাজ বাড়ি অবৈধ দখল কিনা তা আমার জানা ছিলনা। এ কেউ অভিযোগও করেননি । অভিযোগ না পেলে কিছু করার নেই।
ফেনীর এডিসি জেনারেল এনামুল হক জানান, দেশের জমিদার বাড়ি গুলো সংরক্ষন করা জুরুরী হয়ে দাড়িয়েছে। কারণ এটি আমাদের ঐতিহ্যের স্মৃতি বহন করে। অভিযোগ ফেলে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে তিনি জানান।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *