পরশুরামে হত্যার পর দাফনের ২ মাস পর গৃহবধুর লাশ উত্তোলন

নিজস্ব প্রতিনিধি
 পরশুরামে হত্যার পর লাশ দাফনের দুই মাস পর ইসমত আরা (৩৬) নামে এক গৃহবধুর লাশ কবর থেকে উত্তোলন করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের নির্দেশে উপজেলার চিথলিয়া থেকে তার লাশ উত্তোলন করা হয়।

এসময় পরশুরাম উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) হাসিনা আক্তার, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোঃ জাহাঙ্গীর উদ্দীন আহমেদ, চিথলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন, স্থানীয় ওয়ার্ডে মেম্বার মোঃ ইসমাইল হোসেন ও স্থানীয় লোকজনের উপস্থিতিতে উক্ত লাশ উত্তোলন করা হয়।

নিহতের ভাই তাজুল ইসলাম ইসলাস বলেন, চলতি বছরের ১ আগষ্ট দিনগত রাতে জানালার গ্রীলের ইসমত আরার গলায় ওড়না পেচিয়ে ফাঁস লাগিয়ে তাকে হত্যা করে তার স্বামী ইলেক্ট্রিক মেস্তরী জাহাঙ্গীর হোসেন। আমার মা ও ১১ বছরের ভাগনি জিনিয়া আক্তার ঘটনা দেখে ওড়না কেটে ইসমত আরার লাশ নিচে নামিয়ে আনেন। এসময় জাহাঙ্গীর হোসেন আমার মা ও ভাগনিকে ভয়ভীতি দেখিয়ে আত্মহত্যা বলে প্রচার করেন। পরদিন সকালে তড়িঘড়ি করে চিথলিয়া গ্রামের কবরস্থানে ইসমত আরার লাশ দাফন করে চট্টগ্রামের কর্মস্থলে চলে যায় জাহাঙ্গীর।

এঘটনায় তাজুল ইসলাম বাদি হয়ে চট্টগ্রাম ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ইসমত আরাকে হত্যার অভিযোগে জাহাঙ্গীর হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে আদালত গৃহবধুর লাশ উত্তোলন ও মামলাটি তদন্তের জন্য সিআইডিকে নির্দেশ দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *