দুই অধ্যক্ষ দিয়ে চলছে ছাগলনাইয়ায় আবদুল হক চৌধুরী ডিগ্রী কলেজ 

স্টাফ রিপোর্টার ঃ ছাগলনাইয়া উপজেলার আলহাজ্ব আবদুল হক চৌধুরী ডিগ্রী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ২জন! কলেজের উপাধ্যক্ষ ড. মোঃ মহাতাব হোসেন প্রামানিক ও সহকারী অধ্যাপক সৌমিত্র কুমার মজুমদার উভয়ই নিজেকে কলেজের বৈধ ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দাবী করছেন।
এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে কলেজের শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী, অভিভাবক ও এলাকাবাসী উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন। চরম ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করে কলেজ ও এর পাশ্ববর্তী এলাকায়। জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে দুইজনের মধ্যে বিধি অনুযায়ী বৈধ ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ কে ?
কলেজ সূত্র জানায়, কলেজের অধ্যক্ষ কবির আহমেদ অবসরে যাওয়ার পর কলেজের উপাধ্যক্ষ ড. মোঃ মহাতাব হোসেন প্রামানিক গত ১৪মার্চ ২০১৮ থেকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।
নতুনভাবে ১২মার্চ কলেজের সহকারী অধ্যাপক সৌমিত্র কুমার মজুমদার কলেজে এসে দাবী করেন এখন থেকে তিনিই কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ। এই খবর ছড়িয়ে পড়লে কলেজের শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী, অভিভাবক ও এলাকাবাসী উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন। চরম ক্ষোভ ও উত্তেজনা দেখা দেয় কলেজ ও এর পাশ্ববর্তী এলাকায়। ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ড. মোঃ মহাতাব হোসেন প্রামানিক এর পক্ষে বিক্ষোভ করে কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কলেজে মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত পুলিশ। জনমনে প্রশ্ন দেখা দেয় দুইজনের মধ্যে বিধি অনুযায়ী বৈধ ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ কে ? কোন পথে এগুচ্ছে স্বনামধন্য এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি ?
ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ড. মোঃ মহাতাব হোসেন প্রামানিক গভর্ণিং বডির সদস্যদের সদস্য পদ, জ্যেষ্ঠতা লংঘন করে বিভাগীয় প্রধান নিয়োগ ও প্রয়োজনীয় সংখ্যক শিক্ষক নিয়োগ দানে নিষ্ক্রিয়তার বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, ফেনীর জেলা প্রশাসক, ফেনীর পুলিশ সুপার, ছাগলনাইয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগে তিনি জানান, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধিমোতাবেক গভর্ণিং বডির যে কোন সদস্য পরপর একটানা তিনটি সভায় কোন লিখিত কারণ ব্যতীত অনুপস্থিত থাকলে তিনি গভর্ণিং বডির সদস্য থাকার অযোগ্য হয়ে যান। এরকম ৫জন সদস্য ৭/৮টি মিটিংয়ে অনুপস্থিত ছিল। ২৬এপ্রিল গভর্ণিং বডির সদস্য এডভোকেট শহীদ উল্লাহ বস্তায় ভরে এলাকায় পাঠিয়ে দিবে বলে হুমকি প্রদান করে এবং ৫মে গভর্ণিং বডির শিক্ষক প্রতিনিধি সৌমিত্র কুমার মজুমদার চেয়ার তুলে মারার জন্য এগিয়ে এসে তাকে লাঞ্চিত করে।
এব্যাপারে জানতে চাইলে সহকারী অধ্যাপক সৌমিত্র কুমার মজুমদার লাঞ্চিত করার ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, ঢাকায় সভাপতির সরকারী বাসায় ১০ মে অনুষ্ঠিত গভর্ণিং বডির সভায় আমাকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব দেয় হয় এবং ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ড. মোঃ মহাতাব হোসেন প্রামানিককে তার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। আমাকে দায়িত্ব বুঝিয়ে না দেয়ায় আমি ১২মে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।
ছাগলনাইয়া থানার অফিসার ইনচার্জ এম.এম মুর্শেদ পিপিএম অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
গভর্ণিং বডির সদস্য এডভোকেট শহীদ উল্লাহ ও হুমকি দেয়ার ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, নানা অনিয়মের অভিযোগে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ড. মোঃ মহাতাব হোসেন প্রামানিককে তার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।
১৩মে কলেজে গিয়ে দেখা যায় থমথমে ভাব বিরাজ করছে। ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ড. মোঃ মহাতাব হোসেন প্রামানিক বলেন, বিধি মোতাবেক আমি ১৪মার্চ ২০১৮ থেকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি। গভর্ণিং বডির কেউ লিখিত অথবা মৌখিকভাবে আমাকে অব্যাহতি দেয়ার কথা এবং কাউকে দায়িত্ব হস্তান্তর করতে বলেনি।
ছাগলনাইয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এ.কে.এম আলী জিন্নাহ বলেন, বিধি পরিপন্থী কেউ কোন কাজ করলে সেটা হবে কলেজের শিক্ষার মান উন্নয়নে প্রতিবন্ধক। আমরা চাই কলেজে সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরে আসুক।
ফেনী ১ নির্বাচনী এলাকার ছাগলনাইয়া-ফুলগাজী ও পরশুরাম উপজেলার একমাত্র অনার্স মাষ্টার্স কলেজ হিসেবে আলহাজ্ব আবদুল হক চৌধুরী ডিগ্রি কলেজটি দেড় দশক ধরে এলাকায় শিক্ষা বিস্তারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে আসছে। আটটি বিষয়ে অনার্স এবং দুইটি বিষয়ে মাষ্টার্স কোর্স চালু রয়েছে কলেজটিতে। কলেজটি প্রতিষ্ঠা করেন বিশিষ্ঠ শিক্ষানুরাগী ও শিল্পপতি এনামুল হক চৌধুরী ও তার পরিবার । প্রতিষ্ঠার পর থেকে দীর্ঘদিন তারাই কলেজটির কমিটিতে দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর কলেজটির সভাপতি হয়েছেন ফেনী-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জাসদের কেন্দ্রিয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার। তিনি গভর্ণিং বডির সভাপতির দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে দীর্ঘদিন কলেজটিতে ধারাবাহিক নানা অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্ঠি হয়ে আসছে । কখনো কখনো ওই সব অপ্রীতিকর ঘটনার জেরে থানায় মামলা পর্যন্ত হয়েছিল। কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এনামুল হক চৌধুরী, দাতা সদস্য আজিজুল হক চৌধুরী, হিতৈষী সদস্য ফজলুল হক চৌধুরী, অভভাবক সদস্য সামছুল হুদা মজুমদার ও মাজহার উল্যাহ ভূঞা গভর্ণিং বডির ৭ থেকে ৮টি বৈঠকে টানা অনুপস্থিত রয়েছেন। সরকারি বিধি মোতাবেক টানা তিনটি বৈঠকে অনুপস্থিত থাকলেই পরবর্তী বৈঠকে সদস্য হিসেবে বৈঠকে অংশ অবৈধ হওয়ার কথা। বর্তমান কমিটি গত ৭মার্চ ২০১৬সালে প্রথম বৈঠক করার পর থেকে গত ১২ ফেব্রæয়ারি ২০১৮ তারিখ পর্যন্ত মাত্র দশটি বৈঠক করেছেন বলে জানাগেছে।
ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মেজবাউল হায়দার চৌধুরী বলেন, কলেজটির বিভিন্ন সমস্যার কথা তিনি জেনেছেন, উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে দুনীর্তিমুক্ত করে শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করছেন তারা। কলেজটির সমস্যা সমাধানে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে তিনি কলেজের স্বাভাবিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে তার ভূমিকা রাখার কথা জানান ।
গভর্ণিংবডির সভাপতি ও ফেনী-১ আসনের সংসদ সদস্য শিরীন আখতার বলেন, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ড. মোঃ মহাতাব হোসেন প্রামানিককে তার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *