ফেনীতে ড. সেলিম আলদীন মেলার নামে লটারী জুয়া

নিজস্ব প্রতিনিধি> ফেনীতে ড. সেলিম আলদীন মেলার নামে লটারী জুয়া শুরু হয়ে গেছে । এতে একদিকে যেমন মরহুম নাট্যকার ড. সেলিম আলদীনকে অপমান করা হচ্ছে তেমনি সর্বশান্ত হচ্ছে খেটে খাওয়া মানুষ । এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ ও বিভিন্ন অনলাইনে প্রতিবাদের ঝড় উঠলেও প্রশাসন নির্বীকার । সচেতন মহল এ ধরনের লটারী নামক জুয়া বন্ধ করার জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগের সুদৃষ্টি কামনা করছে ।

সরেজমিন পরিদর্শনে দেখা গেছে, গত ২৮ মার্চ থেকে সোনাগাজীর বখতারমুন্সি কলেজের পাশে মরহুম নাট্যকার ড. সেলিম আলদীনের সংস্কৃতি মেলা নামে মাসব্যাপী আয়োজন করেন সোনাগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান জেড় এম কামরুল আনাম ও উপজেলা প্রশাসন । মেলায় প্রতিদিন ৪০০ গাড়ীতে করে বিক্রি করে লাকী কুপন।  মেলা সোনাগাজীতে হলেও সারা জেলায় বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা দামের লটারী টিকেট বা কুপন ।
অভিযোগ রয়েছে, এই মেলার নামে ফেনীর সোনাগাজী উপজেলায় কয়েক দিন ধরে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে মানুষ ঠকানোর লটারি বিক্রয়। লটারির নাম দেয়া হয়েছে উল্লাস!

সোনাগাজীতে হলেও এ লটারি বিক্রি হচ্ছে ফেনীসহ পাশের জেলা নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ, চট্টগ্রামের মীরসরাই,কুমিল্লার অনেক এলাকায়। আয়োজকদের হিসেব মতে প্রতিদিন প্রায় অর্ধকোটি টাকার লটারি বিক্রয় হয় তাদের। আর সাধারণ মানুষের পকেট কাটা এ বিপুল টাকার ভাগ বাটোয়ারা করা হয় রাষ্ট্রযন্ত্রের বিভিন্ন স্তরে।

স্থানীয় টিভি চ্যানেলের মাধ্যমে প্রতিদিন লাইভ সম্প্রচারিত হয়। সন্ধ্যার পরেই খেটে খাওয়া মানুষগুলো নিজেদের ভাগ্যের পরিবর্তনের আশায় সংসারের নিত্যপ্রয়োজনীয় চাল ডাল না কিনে সে টাকা দিয়ে কিনে আনা লটারির নাম্বার মিলাতে কাজ ফেলে বসে যায় টিভি সেটের সামনে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সোনাগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান জেড় এম কামরুর আনাম জানান, লটারী কোনো জুয়া নয় এটা লাকী কুপন । এতে গরীবের ভাগ্যের পরিবর্তন হয় । মেলার আয় ব্যয় হবে সেলিম আলদীন স্মৃতি পরিষদ, সোনাগাজী অন্ধ ও প্রতিবন্ধি কল্যাণে ।

মূলত্ব সেলিম আলদীনকে স্বরনীয় বরনীয় করে রাখার জন্যই মেলার আয়োজন । মেলায় সরকারী পৃষ্টপোষকতা না থাকায় এভাবেই আয় ব্যায় করতে হয় ।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *