জেলা প্রশাসকের সময়োপযোগী সিদ্ধান্তে মহিপালে গ্যাস লিকেজ সংস্কার

নিজস্ব প্রতিনিধি, ১৪ সেপ্টম্বর
ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফেনীর মহিপালে গ্যাস লিকেজ এর কারণ খুঁজে বের করে সেটি সংস্কার করেছে বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কো¤পানী। এখন থেকে ওই স্থানে গ্যাস লিকেজের কোন সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছে বাখরাবাদ কর্তৃপক্ষ। এতে করে স্থানীয়দের মনে সৃষ্টি হওয়া আতংক দূর হয়েছে। তবে স্থানীয়দের মতে ফেনী জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজজামানের আন্তরিক ও সময়োপযোগী সিদ্ধান্তের কারণে মহিপালে গ্যাস লিকেজ দ্রুত সংস্কার করেছে বাখরাবাদ কর্তৃপক্ষ।

বাখরাবাদের ফেনী অফিসের ব্যবস্থাপক মোঃ সাহাব উদ্দিন জানান, গতকাল শনিবার দুপুর থেকে  জেলা প্রশাসক মোঃ ওয়াহিদুজজামানের নির্দেশনাক্রমে মহাসড়কের ওই স্থানে খোঁড়াখুঁড়ির মৌখিক অনুমতি দিয়েছিল সড়ক ও জনপথ বিভাগ। তিনি আরও জানান নিয়মিত মেরামত কার্যক্রম পরিদর্শন করছেন ফেনী জেলা প্রশাসক মোঃ ওয়াহিদুজজামান।

নিয়মিত খোঁজখবরের পাশাপাশি রোববার সকাল ১০টার দিকে মেরামত কার্যক্রম পুনরায় পরিদর্শন করতে যান ফেনী জেলা প্রশাসক মোঃ য়াহিদুজজামান। এসময় তিনি সংস্কার কাজের অগ্রগতি সমপর্কে খোঁজখবর নেন। জানা গেছে, জেলা প্রশাসকের মধ্যস্থতায় এটি দ্রুত সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হয়।

বাখরাবাদের নোয়াখালী আঞ্চলিক কার্যালয়ের সহকারি প্রকৌশলী কামরুল হাসান জানান, রবিবার ( ১৩ সেপ্টেম্ব) বিকাল ৪টার দিকে মেরামতের কাজ সমপন্ন হয়েছে। তিনি জানান, মাটির ৭ ফুট গভীরে পাইপের একটি স্থানে ইঞ্চি পরিমাণ লিকেজ থাকায় গ্যাস বের হত। আমরা সেটি মেরামত করেছি। এখন থেকে ওই স্থানে আর গ্যাস লিকেজ হবার সম্ভাবনা নেই। রোববার ভোরে সড়কের ১ বর্গমিটার জায়গার ঢালাই কেটে গ্যাস লিকেজের কারণ শনাক্ত করা হয়।

তিনি আরও জানান, মহাসড়কের ওই স্থানে খোঁড়াখুঁড়ির মত যন্ত্র ফেনীতে ছিল না। রোরবার সকাল ৬টার দিকে সেগুলো নোয়াখালী এনে লাইন মেরামত কাজ করা হয়।

 

বাখরাবাদের নোয়াখালী আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপ-মহাব্যবস্থাপক (বিক্রয়) মো. সোলায়মান, উপ-মহাব্যবস্থাপক ইঞ্জিনিয়ারিং সার্ভিস) সাগির আহমেদসহ শ্রমিকদের একটি দল মেরামত কাজে অংশ নেয়।

সংস্কার কাজের জন্য বন্ধ রাখা দুপুরে ফেনীর ৪টি উপজেলায় তিন ঘন্টা গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখার কথা জানিয়েছিল বাখরাবাদ। মেরামত কাজ শেষ হওয়ায় নির্ধারিত সময়ের আগেই গ্যাস সরবরাহ পুনরায় চালু করা হয়েছে বলে জানান সহকারি প্রকৌশলী কামরুল হাসান।

 

গতকাল শনিবার সকালে বাখরাবাদ গ্যাস সিস্টেমস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শংকর মজুমদার উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ব্যবস্থা গ্রহণ করার নির্দেশ দেন।

স্থানীয়রা জানান, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফেনীর মহিপাল এলাকায় ছয় লেনের ফ্লাইওভার এক পাশে চট্টগ্রাম অভিমুখী সড়কের ওই স্থানে বেশ কয়েক মাস ধরে অনবরত গ্যাস বের হচ্ছিল। বৃষ্টি হলে পানিতে গ্যাসের বুদবুদ দেখা যায়।দিয়াশলাইয়ের কাঠি জ্বালিয়ে দিলেই জ্বলে উঠত আগুন। এতে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছিল পুরো এলাকায়। অনেক দিন থেকে এ সমস্যা নিয়ে আতংকে ছিলেন তারা।

লিকেজ মেরামত করায় স্থানীয়দের মধ্যে স্বস্থি বিরাজ করছে। দ্রুত সমস্যাটির সমাধান করায় সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানাচ্ছেন তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *