ছাগলনাইয়ায় প্রবাসী বাড়িতে অজ্ঞান পাটির প্রতারণা

ডেক্স রিপোর্টস

পৌরসভার ৫ নম্বর পশ্চিম ছাগলনাইয়ায় বৃহস্পতিবার সকালে জণ্ডিসের ওষুধ বলে প্রবাসীর বাড়িতে বিষাক্ত দ্রব্য খাইয়ে ঘরের সবাইকে অজ্ঞান করে ১২ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও তিন লাখ ২৪ হাজার টাকা লুটের ঘটনা ঘটেছে।বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ফেনী জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তিনজনের জ্ঞান ফেরেনি। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। জানা গেছে, ওই গ্রামের সাতবাড়ির ছিদ্দিক উল্লাহর বড় ছেলে প্রবাসী নুর নবী গত রোববার সকাল ৯টায় কুয়েতের উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হন। নুর নবীর সাথে তার বাবা ছিদ্দিক উল্লাহ (৬০) বাসের কাউন্টারে এবং তার ভাই স্কুলশিক্ষক আবদুল হালিম স্কুলে চলে যান। আনুমানিক বেলা ১১টায় মধ্যবয়সী অজ্ঞাত এক মহিলা প্রবাসীর বাড়িয়ে গিয়ে ঘরের সবাইকে সামান্য টাকার বিনিময়ে জণ্ডিসের ওষুধের নামে নেশাজাতীয় বিষাক্তদ্রব্য খাইয়ে দেয়। বিষাক্তদ্রব্য খাওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই প্রবাসীর মা তাহেরের নেছা (৫৮) আবদুল হালিমের স্ত্রী ফারজানা আক্তার (২৪) ও ফারজানার শিশু ছেলে গাজী ওমর ফারুক (৫) অজ্ঞান হয়ে পড়েন। তাহেরের নেছার রুমে সবাইকে ওষুধ খাইয়ে ফারজানা ও তার শিশু সন্তানকে তাদের রুমে পাঠিয়ে দেয় ওই মহিলা। তাহেরের নেছাকে তার রুমে দরজা বন্ধ করে ওষুধ খাইয়ে কোমর থেকে চাবি নিয়ে আলমারি খুলে বোনের জমা রাখা সাত ভরিসহ ঘরের সবার গলা ও কানের স্বর্ণালঙ্কারসহ ১২ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও তিন লাখ ২২ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। দীর্ঘ সময় ধরে ঘরের কারো সাড়াশব্দ না পেয়ে প্রতিবেশীরা খোঁজ করলে সবাইকে অজ্ঞান অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন তারা। পরে অজ্ঞান অবস্থায় তিনজনকে উদ্ধার করে ফেনী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তাদের জ্ঞান ফেরেনি বলে স্বজনেরা জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *