ছাগলনাইয়ায় চাঁদাবাজির টাকায় চলে নেতার সংসার ! 

ছাগলনাইয়ায় আটটি আঞ্চলিক মহাসড়কসহ ২০টি রুটে চলাচলকারী সিএনজি অটোরিকশায় চাঁদাবাজি করে চলে আওয়ামী লীগ নেতাদের সংসার। এই রুটগুলোতে প্রায় এক হাজার সিএনজি অটোরিকশা চলাচল করে। এই গাড়িগুলো থেকে প্রতিদিন ১০ টাকা হারে মাসে তিন লাখ টাকা চাঁদা আদায় করে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বিআরডিবির স্বঘোষিত চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান মুজিব।

আওয়ামী লীগ নেতাকে চাঁদা দিয়ে ছাগলনাইয়াসহ পুরো ফেনী জেলায় নম্বরবিহীন, ফিটনেসবিহীন ও ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া অবাধে চলছে সিএনজি অটোরিকশাসহ চার চাকার ইমা গাড়ি।
গাড়িচালকরা জানান, পৌরসভার টোল ছাড়াও দলের নামে প্রতিদিন ১০ টাকা হারে লাইনম্যান দিয়ে চাঁদা তোলা হয়। চাঁদা তোলার কারণে এ ধরনের ভাড়া নৈরাজ্য চলছে ২০টি রুটে। চালক সমিতি জানায়, প্রতি মাসে তারা অফিস খরচ বাবদ কিছু টাকা রেখে ওঠানো চাঁদা আওয়ামী লীগ নেতা মুজিবের হাতে তুলে দেন।
এ বিষয়ে জানতে মুজিবের কাছে ফোন দিলে তিনি এর সত্যতা স্বীকার করে  জানান, দলীয় বিভিন্ন কর্মসূচিসহ আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠনগুলোর নেতাকর্মী ও ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের মধ্যে এই চাঁদার টাকা ভাগ করে দেওয়া হয়।
এটি বৈধ কি-না জানতে চাইলে তিনি জানান, এটি আওয়ামী লীগের উপজেলা পর্যায়ের নীতিনির্ধারকদের সিদ্ধান্তেই তোলা হয় এবং তারা তাকে এই দায়িত্ব দিয়েছেন।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শামছুদ্দিন বুলু মজুমদার জানান, এ বিষয়ে তিনি জানেন, তবে কোনো মন্তব্য করতে পারবেন না। ইউনিয়নের সভাপতি হান্নান টাকা পাওয়ার বিষয়টি কৌশলে স্বীকার করে মুজিবের ওঠানো টাকা অবৈধ বলে তিনি দাবি করেন।
ছাগলনাইয়া পৌরসভার মেয়র মো. মোস্তফা আওয়ামী লীগ নেতাদের সিএনজি অটোরিকশা স্টেশন থেকে ওঠানো চাঁদা অবৈধ দাবি করে এটি বন্ধ করতে তিনি জেলা ও উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা সভায় বারবার বলার পরও প্রশাসন এতে কর্ণপাত করছে না বলে জানান। থানা ও ট্রাফিক পুলিশ এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি। (সূত্র দৈনিক সমকাল)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *