কাদের মির্জা গরুচোর, মাতাল,টেন্ডারবাজ ও চরিত্রহীন

নিজস্ব প্রতিনিধি, ১৬ ফেব্রুয়ারী

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল  কাদের মির্জাকে গরু চোর বলে অভিহিত করেছেন ফেনীর নব নির্ব চিত মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী। মঙ্গলবার ফেনীর একটি চাইনিজ রেস্টুরেন্টে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তিনি একথা বলেন। স্বপন মিয়াজী বলেন জননেত্রী শেখ হাসিনা থেকে শুরু করে দলীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরসহ সকল আমি লীগ নেতার বিরুদ্ধে আবদুল  কাদের মির্জা  সমালোচনা করে যাচ্ছেন।  তিনি রাজাকার এবং বিএনপ র গৃহপালিত কুকুর। নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী আরও জানান তিনি নেশা করতে করতে এমন বদ্ধ পাগল হয়ে গেছেন। এত যে উন্মাদ হয়ে গেছেন এতে করে সারা দলীয় আওয়ামী লীগের  এর বিপক্ষে কথা বলছেন।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা আরো অভিযোগ করেন দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্বদরবারে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হতে যাচ্ছে তখনই একটি উন্মাত, টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজি, মাদক আসক্ত দুশ্চরিত্রবান তথাকথিত নোয়াখালী জেলা আমি লীগের নেতা বসুরহাট মেয়র আব্দুল কাদের মির্জাকে নিয়ে আমাদের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সময় কিছুটা নষ্ট করতে হচ্ছে।

তারা বলেন সারাদেশে যখন পৌরসভার নির্বাচনের ডামাডোলে শুরু হয়েছে তখন এই কুখ্যাত চাঁদাবাজ অস্ত্র ব্যবসায়ী মাদকাসক্ত মাদক ব্যবসায়ী মির্জা কাদের তার নির্বাচনী বৈতরণী পার হওয়ার জন্য এবং নিজেকে উৎসবিহীন স্বার্থ চরিতার্থ করার লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণের নামে দেশ বিদেশে পালিয়ে থাকা বিএনপি-জামায়াত নেতৃত্বাধীন বিশেষ করে বিদেশে পলাতক বিএনপি নেতা তারেক রহমান ও তার লোকজনদের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে একটি হোটেলে বৈঠক করেন এবং তারেক রহমানের সাথে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলে ভবিষ্যৎ মওদুদ আহমদ এর অবর্তমানে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি’র মনোনয়ন নিশ্চিত করার স্বার্থে সমঝোতার মাধ্যমে বাংলাদেশে আমি লীগ এবং সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যা চারে লিপ্ত হয়েছেন।

।আমাদের দল এবং নেতাদের ভাবমূর্তি চরমভাবে প্রশ্নের সম্মুখীন করেছে মির্জা কাদের। টেন্ডারবাজ সিএনজির টোল আদায় কারী বাস ট্রাক থেকে চাঁদাবাজিসহ নানা অপকর্মের হোতা মির্জা কাদের সর্বোপরি আমাদের আবেগ অনুভূতি ভালবাসার সর্বস্থানে বাংলাদেশের সর্বস্তরের মানুষের মানুষের আশা আকাঙ্ক্ষার প্রতীক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার ইমেজ ক্ষুণ্ন করার জন্য আবোল-তাবোল বক্তব্য শুরু করলে বিষয়টি আমাদের অনুভূতিতে আঘাত আসার কারণে তার বিরুদ্ধে মুখ খুলতে বাধ্য হয়েছি।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন। দাগনভূঞা উপজেলা চেয়ারম্যান দিদারুল কবির রতন। সোনাগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন মোহাম্মদ লিটন। ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মেজবাউল হক সোহেল চৌধুরী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *