কাজিরবাগে শিপন হত্যা মামলায় বাবা-মেয়ে গ্রেফতার

ফেনী প্রতিনিধি, ১৯ অক্টোবর
ফেনী সদর উপজেলার কাজিরবাগ ইউনিয়নের রুহিতিয়া গ্রামে শিপন হত্যা মামলায় বাবা-মেয়েকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার দুপুরে তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে।
তারা হচ্ছে পূর্ব রুহিতিয়া গ্রামের আবুল হাসেমের মেয়ে ফারহানা আক্তার সুমি(১৯) ও তার পিতা আবুল হাসেম।
এ ঘটনায় নিহতের মা সেলিনা আক্তার বাদী হয়ে ৭ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মো. সাইফুল ইসলাম জানান, বাবা-মেয়েকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে নিহতের মা তাদের নামে মামলা দায়ের করলে সুমি ও তার বাবা হাশেমকে গ্রেফতার দেখানো হয়। তবে কি কারণে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে তথ্য উদঘাটন করতে পুলিশ কাজ করছে।

নিহতের নানা আবুল কাশেম জানান, আসামীদের মধ্যে রয়েছে তার প্রেমিকা সুমি, সুমির বাবা হাশেম ও মা রোকেয়া বেগম, নিহতের বন্ধু তৌহিদ, সজিব, আসিফ ও আবদুল কাদের। রবিবার তাদের রুহিতিয়া পাটোয়ারী বাড়ির পাশে শিপনের লাশ পড়েছিল।
আবুল কাশেম বলেন, কাদের আমাকে ফোন দিয়ে বলে, পাটোয়ারী বাড়ির বাথরুমের সামনে একটি অজ্ঞাত লাশ পড়ে আছে। লাশ উদ্ধারের সময় সে নিজে ঘটনাস্থলে থাকলেও সকাল সাড়ে ১০টার পর উধাও হয়ে যায়। তিনি বলেন, সুমির সাথে শিপন কথা বলতো, তার সাথে বিয়ের কথাবার্তা চলছিল। তিনি অভিযোগ করেন, কাদেরের সাথেও মেয়েটির স¤পর্ক ছিল।
এর আগে রবিবার (১৮ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে পূর্ব রুহিতিয়া গ্রামের হাজী বাড়ির মৃত শহিদুল ইসলাম মনু মিয়ার ছেলে সালমান হোসেন শিপনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী জেনারেল হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ। শিপন ঢাকায় স্যানিটারি মিস্ত্রি হিসেবে কাজ করত। শুক্রবার সে বাড়িতে আসে। নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার দুহাতের রগ কাটা ছিল, এছাড়া বাম চোখ ছিল উপড়ানো। তার পুরুষাঙ্গেও আঘাতের চিহ্ন রয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *