কবরের জন্য সাড়ে তিন হাত চান প্রতিবন্ধী সন্তানের পিতা

 

 

 

দুলাল তালুকদার->>

 

ফেনী ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের পুরাতন ভবনের ৩য় তলার পুরুষ ওয়ার্ডে প্রতিবন্ধী ছেলের পাঁশে বাবা দুলাল মিয়া কাঁদছেন। তার একমাত্র ছেলে মাঈন উদ্দিন আর বেঁচে নেই।

নেত্রকোনা জেলার কমলাকান্দার বাসিন্দা দুলাল মিয়া। ৫ বছর আগে স্ত্রী মারা যাওয়ায় জীবিকার তাগিদে থাকেন ফেনীর ফুলগাজী উপজেলার আমজাদহাট ইউনিয়নে একটি ভাড়া বাসায়। ওই এলাকায় তরকারি বিক্রি করে জীবন চালান দুলাল মিয়া। ছেলের মতো তার দুই মেয়েও প্রতিবন্ধী।

 

বুধবার সন্ধ্যায় হঠাৎ প্রতিবন্ধী মাঈন উদ্দিন মুখ দিয়ে কয়েকবার বমি করার ফলে তাকে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসেন বাবা দুলাল মিয়া। দীর্ঘ চার ঘন্টা চিকিৎসাধীন থাকার পরে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিয়ম অনুযায়ী তার মরদেহ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

 

 

 

ছেলের মরদেহ বিনা ময়নাতদন্তে তাকে দেয়ার কোন প্রক্রিয়া যদি থাকে তবে তিনি কর্তৃপক্ষের কাছে বিনা ময়নাতদন্তে তার ছেলের দাফনের অনুমতি চেয়েছেন। এছাড়া তার ছেলেকে কবর দেয়ার জন্য ফুলগাজীর আমজাদহাট এলাকাবাসীর কাছে কবরের জায়গার জন্য আবেদন জানিয়েছেন দুলাল মিয়া।

 

এদিকে ফেনী পৌরসভার ১০নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাহাতাব মুন্না জানান, মাঈন উদ্দিনের মরদেহ ফেনী পৌর কবরস্থানে দাফনের ব্যবস্থা করা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *