অরক্ষিত ঐতিহ্যবাহী ফেনীর তুলাবাড়িয়ার দেড়শ বর্ষী মহা-শশ্মান মন্দির

সৌরভ পাটোয়ারী, ফেনী,

ঐতিহাস আর ঐতিহ্যের নিরব স্বাক্ষী হয়ে দাড়িয়ে আছে ফেনীর তুলাবাড়িয়ার দেড়শ বছরের মহা শশ্মান মন্দির । তবে এলাকাবাসীর অভিযোগ রক্ষণাবেক্ষনের অভাবে মন্দিরটি হারিয়ে যেতে বসেছে।  এ স্মৃতি ফেনী শহরের অদুরে একটু পুর্বেই অবস্থিত। হিন্দু অধ্যুষিত এলাকা যেখানে শত ভাগ ভূ-সম্পদের মালিক হিন্দু সম্প্রদায় । এখানে বসবাসকারী জনসংখ্যাও ৯৯ ভাগ  হিন্দু  সম্প্রদায়।

এটি যদিও কালিদহ ইউপির ৮ নং ওয়ার্ডের অন্তর্ভুক্ত, তবে সার্বিক যোগাযোগ চলে ফেনী পৌরসভার অংশেই ।  প্রায় ৫০০ শত বছর পুর্বে  থেকে এ এলাকায় ইউপি সদস্য নির্বাচিত হয়ে আসছে হিন্দু সম্প্রদায়। মন্দিরের ভেতরের অংশে চুন আর ইট বালির তৈরীকৃত দালান খসে পড়ছে । বাহিরের অংশও পলেষ্টার খসে পড়ছে।

এলাকাবাসী শান্তি লাল দাস জানান, সংস্কারের অভাবে মন্দিরটি স্মৃতি চিহ্ন মুছে যাচ্ছে।একটি মহৎ উদ্যোগ আর দায়িত্বশীল ভূমিকা নিলে ঐতিহ্য ধরে রাখা সম্ভব হবে। তা না হলে মন্দির ধ্বংস হয়ে যাবে ।

ইউপি সদস্য নেপাল চন্দ্র শীল জানান, তুলাবাড়িয়ার  মহা শশ্মান মন্দিরটি দেড় শতবর্ষী বলা হলেও এটির প্রতিষ্ঠ কাল বয়স আরো বেশি হবে। এখানে দাহ করা হয় এলাকার এক সময়ের প্রভাবশালী মাস্টার সুবল, হরিনাথ মাস্টার, বেচা রাম সিং, লক্ষী সিং ও দিলীপ চন্দ্র দাসসহ সনাতন ধর্মী আরো অনেক গণ্যমান্য ব্যক্তিকে।তবে উদ্যোগ আর বরাদ্দের  অভাবে এটি সংস্কার করা যাচ্ছে না ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *